BD Game Bazar, Best 1

wall breaker g581fbd808 1280

BD Game Bazar Industry

Platform টির ভ্যালু প্রায় ০.৫ বিলিয়ন।

বর্তমানে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মোবাইল আসক্তি দেখা যায়। যেটির অন্যতম কারণ হলো অনলাইন গেমিং আসক্তি। দেশের অধিকাংশ শিশু থেকে প্রায় যুবক বয়সের মানুষরা গেমে আসক্ত। গত ১০ বছর আগে গেমের এত আসক্তি ছিলো না। তবে দেশে ইন্টারনেট ও ডিভাইসের সহজলভ্যতায় এটি প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে। বাংলাদেশের গেমিং মার্কেট ভ্যালু ও আকার ক্রমেই বেড়ে চলছে। কয়েক দিন আগে যেটির কোনো মূল্য ছিলো না সেটির বর্তমান মার্কেট ভ্যালু প্রায় ০.৫ বিলিয়ন। আগামী দুিই বছরের মধ্যে এই মার্কেটের মূল্য ১ বিলিয়ন ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

পাবজি ও ফ্রি-ফায়ারসহ দেশে বেশ কিছু গেমস বর্তমানে বেশ জনপ্রিয়। গেমেস খেলাকে আরো সহজ করতে কয়েকটি ওয়েব সাইট গড়ে উঠেছে। যার মধ্যে অন্যতম হলো BD Game Bazar, Garena এর বাংলাদেশি অফিসিয়াল সার্ভার। এসব সার্ভারে হাজার হাজার তরুণ প্রজন্ম সারাদিন পরে থাকেন। এতে দেশের আর্থিকসহ সামাজিক নানা দিকের ক্ষতি হচ্ছে।

BD Game baza

BD Game Bazar কি?

BD Game Bazar, Garena এর অফিসিয়াল সার্ভার।BD Game Bazar মাধ্যমে দেশের তরুণ প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা BD Game Bazar থেকে ফ্রিতে বিভিন্ন অনলাইন গেমস খেলা এবং লেভেল আপ করার ব্যাবস্থা আছে।

BD Game Bazar যেসব জিনিস পাওয়া যায়:

BD Game Bazar থেকে মোবাইল গেমাররা Free Fire সহ বিভিন্ন প্রকার গেম এর ভাউচার ক্লেইম করতে পারে । এখান থেকে বিভিন্ন গেমসের অ্যাডভান্স লেভেলে যাওয়ার জন্য পয়েন্ট ও কয়েন কিনতে পারেন।

গেমস আসক্তির ক্ষতিগুলো:

অনালাইন গেমস খেলার ফলে নানা ধরনের ক্ষতি হতে পারে ছেলে-মেয়েদের। মেজর কিছু ক্ষতির কারণ নিচে আলোচনা করা হলো-

১. চোখের সমস্যা

অনলাইন গেমস আসক্তি থাকলে দীর্ঘ সময় মোবাইলের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয়। ফলে চোখের নানা ধরনের ক্ষতি। অনেক সময় চোখের গুরুতর সমস্যা শুরু হয় খুব অল্প বয়সের ছেলে-মেয়েদের।

২. পড়াশোনায় অনিহা:

অনলাইন গেমসের সবচেয়ে বাজে ক্ষতিকারক দিক হলো পড়াশোনায় আগ্রহ হারিয়ে ফেলে তরুণ প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা। গেমস না খেললে তাদের মনে হয় অন্য কিছু হবে না। এই বিষয়টি ছাড়া অন্য কোনো বিষয়ে মজা নেই। তাই তারা পড়াশোনায় আগ্রহ হারিয়ে ফেলে।

৩. মাথা ব্যাথ্যা
দীর্ঘ সময় ফোনে তাকিয়ে থাকলে এক দিকে শুধু চিন্তা ধাবিত হয়৷ এতে মস্তিষ্কে সঠিক ভাবে রক্ত সঞ্চারিত হয় না। ফলে মাথা ব্যাথ্যা শুরু হয়। এছাড়া ফোনের বা ডিজিটাল ডিভাইসের স্ক্রিন থেকে কিছু ক্ষতিকর রশ্নি বের হয় সেটির ফলেও মাথা ব্যাথ্যা শুরু হয়।

৪. মেজাজ কিটকিট হওয়া
অনলাইন গেমসের অন্যতম একটি খারাপ দিক হলো মেজাজ হারিয়ে ফেলা বা কিটকিটে হওয়া৷ এটির কারণ হলো গেমসের মূলে থাকে জয়ী হওয়া যখন কেউ গেমসে হারতে থাকে তখন তার মেজাজ খারাপ হয়ে যায়। এছাড়া জয় ছাড়া অন্য কিছু কল্পনা করতে না পারার কারণে সর্বদা মেজাজ কিটকিটে থাকে৷

৫. চিন্তা করতে ভুলে যাওয়া
অনলাইন গেমসের কিছু নির্দিষ্ট ব্যাপার থাকে যেটির বাইরে কিছু করতে হয় না বা সৃজনশীল কিছু করার থাকে না। ফলে যারা এটিতে অসক্ত হয়ে পড়ে তারা অন্য কোনো বিষয় নিয়ে আর চিন্তা করতে পারে না।

BD Game bazar

গেমসের সব যে মন্দ আসক্তি আছে তাই নয় কিছু ভালো ব্যাপারও রয়েছে। সেগুলা নিম্নে আলোচনা করা হলো:

১. সিদ্ধান্ত গ্রহণ
অনলাইন গেমসে মুহুর্তের মধ্যে শত্রুর আক্রমণ থেকে নিজেকে যেমন রক্ষা করতে হয় ঠিক তেমনি শত্রুকে মারতে হয়। ফলে নিয়মিত এমন কাজ করার পর মানুষের স্বাভাবিক সক্ষমতা বেড়ে যায়।

২. টেকনোলজির জ্ঞান বৃদ্ধি
বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগ৷ এই যুগে প্রযুক্তির জ্ঞান ছাড়া চলা মুশকিল। গেমসের মাধ্যমে প্রযুক্তির নানা দিক সম্পর্কে জানা যায়। এটির ফলে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে আপডেট রাখা যায়।

৩. সূক্ষ্ম দৃষ্টির সৃষ্টি;
গেমসের অনেক ইভেন্ট ও লেভেলের মধ্যে কিছু সময় খুব সূক্ষ্ম ভাবে খেলতে হয়। এটি ছাড়া পরবর্তী লেভেলে যাওয়া যায় না। নিয়মিত এমন চর্চার ফলে মানুষ স্বাভাবিক জীবনেও বেশ সূক্ষ্ম ভাবে কাজ করার দক্ষতা অর্জন করে।

সব মিলিয়ে বিশ্বের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের গেমসের বাজারও বড় হচ্ছে। এটি একটি সম্ভবনাময় সেক্টর হিসেবেও তৈরি হচ্ছে। কারণ অনেকে গেমস ডেভেলপমেন্ট করে অনেক বেশি অর্থ উপার্জনের পথ খুজে পাচ্ছে। তবে যেকোনো কিছুর আসক্তি ভালো নয়৷ সেদিক থেকে আমাদের দেশের তরুণ প্রজন্ম ভালো থাকুক এই কামনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *