সকালের স্বাস্থ্যকর নাস্তা (Healthy Breakfast) Best list 23

tray g0ea979baf 1280

মানুষের চালক শক্তি হলো খাদ্য (Healthy Breakfast)।

আর খাদ্য গ্রহণের সবচেয়ে আদর্শ সময় হলো সকালে ঘুম থেকে উঠা প্রথম খাওয়া। এটি বিশ্বব্যাপী সকালের নাস্তা (Healthy Breakfast) হিসেবে পরিচিত। তবে বর্তমানে যুগে অনেকে স্বাস্থ্য কমানোর জন্য সকালের খাবার বাদ দেন। এটি মোটেও উচিত নয়। কারণ সকালের প্রথম খাদ্য দিয়ে আমরা সারাদিনের চলার শক্তি পেয়ে থাকি।

 

একটা প্রবাদ আছে (Eat Breakfast like a king) সকালের নাস্তা মূলত রাজার খাবারের মতো হওয়ার কথা। আর সকালে না খেলে শরীরে নানা ধরনের রোগ-ব্যাধিও হতে পারে। সব মিলিয়ে সকালের খাবার আমাদের শরীরের জন্য সবচেয়ে কার্যকরী। তবে সকালের আদর্শ নাস্তায় কি কি থাকতে পারে সেটি নিচে আলোচনা করা হলো-

(Healthy Breakfast)

১. ডিম ও কলা: (Healthy Breakfast)

পৃথিবীর যেকোনো জায়গায় এই দুটো জিনিস পাওয়া যায়। আর এই দুটো হলো সকালের নাস্তার জন্য সবচেয়ে কার্যকরী। ডিম ও কলায় পর্যাপ্ত প্রটিন ও ফাইবার রয়েছে। যা মানুষের শরীরের জন্য বেশ উপকারী। আর এই দুটো থেকে কারেন্ট কিলোক্যালোরি পাওয়া যায়। যা একজন মানুষের দিনের বেলা কাজের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি সহেযোগীতা করবে।

আরো পড়ুন- Health কি?

২. বিভিন্ন ফল (Healthy Breakfast)

সকালের নাস্তার দারুণ কিছু হতে পারে ফলমূল দিয়ে। তার মধ্যে অন্যতম হলো স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি, জাম । সবগুলো ফলে বেশ পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে। এসবে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস থাকে, যা মানবদেহের কোষকে সুস্থ রাখে এবং সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যের উন্নতি সাধন করে। প্রতিটি কোষকে শক্তিশালী রাখার জন্য কাজ করে। অন্যদিকে রক্তের মধ্যে সুগারের মাত্রা সঠিক রাখতে সাহায্য করে।

 

৩. ওটমিল (Healthy Breakfast)

সারাদিনের কাজের এনার্জি পেতে ওটমিল বেশ কার্যকরী ভূমিকা রাখে। কারণ এতে যেমন রয়েছে প্রচুর এনার্জি তেমনি কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফাইবার, ম্যাংগানিজ, কপার, ফসফরাস, আয়রন, জিঙ্কসহ আরো অনেক কিছু। এছাড়া ওটসে দুধ, ফল ও বাদাম মিশিয়ে খেতে পারলে আরো বেশি ভালো হয়। এতে ওজন কমানো এবং কলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে বেশ ভালো কাজ করে।

 

৪. গ্রিন টি (Healthy Breakfast)

গ্রিন টি এর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ভিটামিন এ, ভিটামিন বি , বি৫, ডি, ই, সি, ই, এইচ সেলেনিয়াম, ক্রোমিয়াম, জিঙ্ক, ম্যাঙ্গানিজ ও সামান্য ক্যাফেইন। গ্রিন টির উপকারিতা অনেক। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস নিয়ন্রণে সাহায্য করে, ওজন কমাতে সাহায্য করে, ক্যান্সার প্রতিরোধ করে ও মস্তিস্ককে উদ্দীপ্ত করে। এছাড়া ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষার্থে গ্রিন টির জুড়ি মেলা ভার।

(Healthy Breakfast)

৪. তিসি (Healthy Breakfast)

প্রাচীনকাল থেকেই শরীরকে সুস্থ এবং রোগমুক্ত রাখতে তিসি বীজের ব্যবহার হয়ে আসছে। প্রকৃতির মহৌষধ বলা হয় ফ্ল্যাকসিড বা তিসিকে। এটির বীজ আমাদের শরীরের জন্য বেশ উপকারী। মাত্র এক চামচ তিসি বীজ খেলেই শরীরে প্রবেশ করে প্রায় ১.৩ গ্রাম প্রোটিন, ২ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ১৯ গ্রাম ফাইবার, ১.৫৯৭ এমজি ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, দৈনিক চাহিদার ৮ শতাংশ ভিটামিন বি১, ২ শতাংশ ভিটামিন বি৬, ২ শতাংশ ফলেট, ২ শতাংশ আয়রনসহ আরো অনেক কিছু। স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি, কাজের দক্ষতা বৃদ্ধিসহ আরো বেশ কিছু কাজে এটি কার্যকরী।

 

৫. বিভিন্ন  বাদাম (Healthy Breakfast)

সকালের নাস্তার আরেকটি ভালো উপাদান হলো বিভিন্ন ধরনের বাদাম। যাতে ভিটামিন ও খনিজে ভরা থাকে। এটি পানিতে ভেজালে পুষ্টিগুণ অনেক বেড়ে যায়। হজমশক্তি বাড়ায় ও ওজন কমাতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকার পর সকালে ৫-১০টি কাঠবাদাম খেলে পুষ্টি জোগানোর পাশাপাশি সারাদিন রুচিও বাড়ায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, কাঠবাদামের বাদামি আবরণে ট্যানিন নামের উপাদান থাকে, যা পুষ্টি শোষণ করে। ভেজানো হলে খোসা খুলে যায় এবং সহজে পুষ্টি বের হয়। শরীরের বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণ করতে এটির জুড়ি নেই।

 

৬. রুটি (Healthy Breakfast)

সকালের খাবারের জন্য অন্যতম আরেকটি উপাদান হলো রুটি। এটি আমাদের শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় শর্করার চাহিদা পূর্ণ করে। এটির মাধ্যমে দীর্ঘক্ষণ আর কিছু খেতে হয় না। ফলে এটির দিয়ে দারুণ একটা দিনের সেরে নেওয়া যেতে পারে।

 

৭. দই (Healthy Breakfast)

টক দই আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। তাই এটি দিয়ে সকালের নাস্তা করা যেতে পারে। টক দইয়ে প্রয়োজনীয় পুষ্টি ও শক্তি জোগান দেওয়ার মতো সব উপাদান রয়েছে। তাই টক দই বেশ ভালো হতে পারে।

 

৮. পেঁপে (Healthy Breakfast)

ফলের মধ্যে সবচেয়ে সহজলভ্য ফলের নাম পেঁপে। খুব অল্প টাকায় এটি সবাই ক্রয় করতে পারে। এটি আমাদের খাদ্য তালিকায় থাকা বেশ উপকারী। ফলে এটি দিয়ে সকালের নাস্তা সেরে নেওয়া যেতে পারে। এটি স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ভালো।

(Healthy Breakfast)

৯. বিভিন্ন সালাদ

বিভিন্ন সবজি ও ফ্রুটস দিয়ে এক ধরনের সালাদ তৈরি করা হয়। যেখানে কিছু ফল ও সবজি থাকবে। অনেক সময় কয়েকটি সবজি হালকা সেদ্ধ করেও খাওয়া যেতে পারে। এটি আমাদের শরীরের জন্য বেশ ভালো। যেমন, কাচা ছোলা, শষা, লেবু, আপেল, তরমুজ, পেয়ারাসহ আরো কিছু ফল মিলিয়ে এ ধরনের সালাদ তৈরি করা সম্ভব।

 

আরো পড়ুন- মেক্সিকান রেস্টুরেন্ট ও খাবার (mexican restaurants )

আসলে সকালের নাস্তার গুরুত্ব লিখে শেষ করা সম্ভব নয়। মানুষের স্বাভাবিক জীবন চলার জন্য সকালের নাস্তার বিকল্প কিছু নেই। গাড়ি চালানোর জন্য যেমন আগে ট্যাংক ভর্তি তেল উঠাতে হয় তেমনি আমাদের শরীরকে সারাদিনের কাজের উপযোগি করার জন্য নাস্তা গুরুত্বপূর্ণ। আর শুধু নাস্তা করলেই হবে না। নাস্তা হতে হেবে আমাদের শরীরের জন্য উপযোগী ও কার্যকরী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *